peperonity.net
Welcome, guest. You are not logged in.
Log in or join for free!
 
Stay logged in
Forgot login details?

Login
Stay logged in

For free!
Get started!

Text page


deshi08.peperonity.net

বন্ধুর বউ – মধুর প্রতিশোধ

প্রতিশোধ বলা হলেও এটা কোন রেইপ ঘটনা না। এটা ছিলো সুযোগের সদ্বব্যবহার করা। প্রতিশোধটা ভিন্ন অর্থে।
আমার বন্ধুটির নাম নয়ন। আর তার এক সময়ের প্রেমিকা আর এখন বিবাহিত বউটির নাম – আখি। দুজনের প্রেমের বয়স ছিলো চার বছর। আর বিয়ে হয়েছে আর ছয় বছর। ওদের দশ বছরের সম্পর্কে কালি লেগে গেলো একদিন।
আখি আমাদের পাশের বিল্ডিং এ থাকতো। প্রায় প্রতিদিন বিকেলে আখি তাদের ছাদে উঠতো। আমিও উঠতাম আমার শখের কোডাক ক্যামেরা নিয়ে। বেশী ছবি তুলতাম না কারন শেষ হয়ে এলেই তো আবার রীল কিনতে হত। যাইহোক, আখি মাঝে মাঝে ইশারা বা কথা বলার চেষ্টা করলেও আমি পাত্তা দেইনি তেমন। কতই বা বয়স ছিলো ওর? ১৩ এর মত। চেহারাও তেমন আহামরি ছিলো না। সেই তুলোনায় আমাদের উপরের তলায় বিজলী ছিলো একটা আইটেম বম্ব। বিজলী ছিলো আমার বয়সী। কিন্তু ১৬ বছরেই বিজলীর ফিগার ছিলো চেয়ে চেয়ে দেখার মত। আমি আমার ধন-মন সব বিজলীর নামে সমর্পন করে বসে ছিলাম। আখি নামের পিচ্চি একটা আনাকর্ষনীয় মেয়ের দিকে আমার তাকানোটা ছিলো তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের ভংগিতে সীমাবদ্ধ। সেই আখির সাথে আমার বন্ধুর সেই বছরেই প্রেম হয়ে গেলো।
চার বছরের প্রেমের জীবনে অনেক ঝামেলা পেরিয়ে একদিন দুজনে হুট করে পালিয়েও গেলো। প্লাইয়ে গিয়ে তারা কোথায় যেনো কোর্ট ম্যারেজ করে এক মাস বাসার বাইরে থেকেও আসলো। আখির বয়স যদিও বিয়ের সময় ১৭ হয়েছিলো, নয়ন কিভাবে কিভাবে যেনো কিছু জাল সার্টিফিকেট বানিয়ে সেখানে আখির বয়স ১৮ দেখিয়ে দেয়। পালিয়ে যাওয়ার মাসখানেক পর একদিন দুজনকে দেখা যায় নয়নের মা বাবার পা ধরে বসে আছে। নয়নের মা বাবা ছহেলের কথা চিন্তা করে দুজনকেই মেনে নিলেন। নয়ন কিছুদিন পর একটা প্রাইভেট ফার্মে অল্প বেতনে চাকরী নিলো। আর আখি পুরোদস্তুর হাউজওয়াইফ হয়ে গেলো।
আজ দশ বছর পর আখিকে দেখে মনে হলো আমি বেশ বড় একটা ভুল করে ফেলেছি আখির প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে। সেই বালিকা আখি তার গুবরে পোকার খোলস ছেড়ে বেড়িয়ে এসে পরিপুর্ন প্রজাপতি হয়ে গিয়েছে। নীল শাড়িস সাথে সাদা ব্লাউজ পড়া আখিকে দেখে আমার বুকের কোথায় যেনো একটু ব্যাথা ব্যাথা করতে লাগলো।
আমরা বসে ছিলাম অঞ্জলীদিদির হলরুমের মত বিশাল ড্রয়িংরুমে। আজকে অঞ্জলিদিদি একটা পার্টি থ্রু করেছেন। তার নাকি বেশ বড় একটা শিপমেন্ট আটকে ছিলো চিটাগাং বন্দরে। গত সপ্তাহে সেটা ছাড়া পেয়েছে। এই উপলক্ষে পার্টি। নিশ্চয়ই বিশাল অঙ্কের টাকার ব্যাপার, ...
Next part ►


This page:




Help/FAQ | Terms | Imprint
Home People Pictures Videos Sites Blogs Chat
Top
.